শিক্ষকদের জন্য সুখবর, একটা ক্লাস নিলেই মিলবে সাড়ে ৩ হাজার টাকা!

নাঈম সজলঃ করোনার কারণে ১৮ মার্চ থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ থাকায় থমকে গেছে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা। করোনা-সৃষ্ট এই ক্ষতি পুষিয়ে নিতে গত ৭ এপ্রিল থেকে টেলিভিশনে ক্লাস সম্প্রচার করে আসছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। তবে, অনেক শিক্ষার্থীই এতে সংযুক্ত হতে পারছে না। তাই রেডিওতে ক্লাস সম্প্রচারের উদ‌্যোগ নেওয়া হচ্ছে। ইউনেস্কোর অর্থায়নে প্রাক-প্রাথমিক থেকে পঞ্চম শ্রেণির ক্লাস সম্প্রচারের প্রস্তুতি শেষের পথে। রোববার (২৬ জুলাই) থেকে এই ক্লাসের রেকর্ডিং শুরু হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট-সূত্র জানায়, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর এবং এ-টু-আই সমন্বয় করে রেডিওতে ক্লাস সম্প্রচারের বিষয় তৈরি করবে। যেগুলো বাংলাদেশ বেতারে প্রচার করা হবে।

জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ফসিউল্লাহ বলেন, ‘ইতোমধ্যে বাংলাদেশ বেতারের সঙ্গে কথা হয়েছে। তারা ফ্রি সম্প্রচার করবে। এর পাশাপাশি এফএম রেডিওতে ক্লাস সম্প্রচার করা হবে।’

ক্লাস সম্প্রচারের বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, ‘আগামীকাল (২৬ জুলাই) থেকে আমাদের রেকর্ডিং শুরু হবে। এরমধ্যে প্রচার-প্রচারণায় কিছুদিন সময় লাগবে। ক্লাস সম্প্রচারের সময় ঠিক করবো মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বৈঠক করে। তবে, পরিস্থিতি বলছে—ঈদের আগে সম্ভব হবে না।’

ক্লাস প্রতি কেমন খরচ হবে—এ বিষয়ে জানতে চাইলে মোহাম্মদ ফসিউল্লাহ জানান, ‘বাংলাদেশ বেতার-এফএম রেডিও ক্লাসগুলো ফ্রি সম্প্রচার করবে। তাই সম্প্রচারে তেমন খরচ নেই। তবে, ক্লাস প্রতি প্রত্যেক শিক্ষক সাড়ে তিন হাজার টাকা সম্মানী পাবেন। সব মিলিয়ে ১০ থেকে ১৫ হাজার খরচ হতে পারে। এতে টেলিভিশন সম্প্রচারের চেয়ে খরচ প্রায় এক-তৃতীয়াংশ কমে আসবে।’

শিক্ষক বাছাই প্রসঙ্গে মোহাম্মদ ফসিউল্লাহ বলেন, ‘ঢাকা মহানগর ও এর আশেপাশের এলাকাগুলো থেকে প্রাথমিকভাবে শিক্ষক বাছাই করা হবে। যারা অনলাইন মাধ্যমে দক্ষ, ভালোভাবে কথা বলতে পারবেন, মূলত তাদের নির্বাচিত করা হবে। এছাড়া, টেলিভিশনে চিত্র দেখিয়ে শিশুদের বোঝানো যায়, কোনো কিছু না দেখিয়ে, কেবল রেডিওতে শুনিয়ে কিভাবে শিশুকে বোঝানো যাবে, তার ওপর গুরুত্ব দেওয়া হবে।’

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের কর্মকর্তারা বলছেন, করোনার কারণে শিগগিরই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হচ্ছে না। পরীক্ষাও নেওয়া যাচ্ছে না। তাই শিক্ষার্থীদের শিক্ষার সঙ্গে যেকোনোভাবে যুক্ত রাখার চিন্তা থেকেই একের পর এক উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।

জানতে চাইলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম আল হোসেন বলেন, ‘সংসদ টেলিভিশনের পাঠদান সব শিক্ষার্থীর কাছে পৌঁছাচ্ছে না। তাই শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার সঙ্গে সম্পৃক্ত রাখতে এমন উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। টেলিভিশনের পাশাপাশি রেডিও-মোবাইলের মাধ্যমে পঠনপাঠন পৌঁছাতে একটা প্ল‌্যাটফরম তৈরি করছি। এজন্য ক্লাস রেকর্ড করা হচ্ছে। এগুলো ধারাবাহিকভাবে রেডিও-মোবাইলফোনে সম্প্রচার করা হবে।’

সচিব আরও বলেন, ‘পাশাপাশি শিক্ষার্থীর মায়েদের কাছে এই বিষয়ে এসএমএস পাঠানো হবে।’ এর মাধ‌্যমে শতভাগ শিক্ষার্থীকে অনলাইন পাঠদানের আওতায় আনা যাবে বলেও মনে করেন তিনি।

Check Also

সংক্ষিপ্ত বিশ্ব সংবাদ: ২৮ জুন ২০২১

প্রতিদিনই আমাদের চারপাশে অসংখ্য ঘটনা ঘটছে। এর মধ্যে হয়তো আলোচনায় আসে হাতেগোনা কিছু। তবে সময় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *