বিসিএস প্রিলিমিনারি বাংলাদেশ বিষয়াবলি – প্রাকৃতিক সম্পদ

বিসিএস প্রিলিমিনারি বাংলাদেশ বিষয়াবলি

⏺প্রাকৃতিক সম্পদ  

➡কৃষি কাজের জন্য সর্বাপেক্ষা উপযোগী মাটি-পলি মাটি।

➡বাংলাদেশের মোট কৃষি জমির পরিমান কত-২,০৪,৮৪,৫৬১ একর।

➡বাংলাদেশের মোট চাষাবাদযোগ্য জমির পরিমান কত-১,৭৭,৭১,৩৩৯ একর।

➡বাংলাদেশে চাষের অযোগ্য চাষের জমির পরিমান কত-২৭,১৩,২২২ একর।

➡বাংলাদেশের প্রধান অর্থকরী ফসল -পাট।

➡বাংলাদেশের দ্বিতীয় অর্থকরী ফসল -চা।

➡বিশ্বে ধান উৎপাদনে বাংলাদেশের অবস্থান-তৃতীয়।

➡পাট উৎপাদনে বিশ্বে বাংলাদেশের স্থান – দ্বিতীয় ।

➡সবচেয়ে বেশী পাট উৎপন্ন হয়-ফরিদপুর।

➡রবি শস্য বলতে বুঝায়-শীতকালীন শস্যকে।

➡খরিপ শস্য বলতে বুঝায়-গ্রীষ্মকালীন শস্যকে।

➡বাংলাদেশের অর্থনীতিতে কৃষিখাতের অবদান কত- ২১.৯১%।

➡বাংলাদেশের শস্য ভান্ডার বলা হয় কোন জেলাকে-বরিশাল।

➡বাংলাদেশে বানিজ্যিকভাবে প্রথম কখন চা চাষ করা হয়-১৯৫৪ সালে।

➡গম গবেষণা কেন্দ্র কোন জেলায় অবস্থিত-দিনাজপুর।

➡বাংলদেশের প্রথম চা বাগান কোনটি-সিলেটের মালনিছড়া।

➡সবচেয়ে বেশী চা জন্মে কোন জেলায় – মৌলভীবাজার জেলায়।

➡বাংলাদেশের চা গবেষণা কেন্দ্র অবস্থিত- মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলে।

➡বাংলাদেশে মোট চা বাগানের সংখ্যা কত- ১৫৯ টি।

➡বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশী রেশম উৎপন্ন হয়-চাঁপাই নবাবগঞ্জে।

➡বাংলাদেশ রেশম বোর্ড অবস্থিত-চাঁপাই নবাবগঞ্জে।

➡বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশী তামাক জন্মে – রংপুরে।

➡বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশী তুলা জন্মে -যশোরে।

➡বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সেচ প্রকল্প কোনটি-তিস্তা বাধ প্রকল্প।

➡বাংলাদেশে ধান গবেষনা কেন্দ্রের সংক্ষিপ্ত নাম -BRRI, গাজিপুর।

➡BADC বলতে বুঝায়-বাংলাদেশে কৃষি উন্নয়ন সংস্থা (Bangladesh Agricultural Development Corporation)

➡জুটন আবিস্কার করেন -ডঃ মোহাম্মদ সিদ্দিকুল্লাহ।

➡বাংলাদেশে মাথাপিছু আবাদী জমির পরিমান -০.১৪ একর।

➡সর্বশেষ কৃষিশুমারী অনুষ্ঠিত হয়-২০০৮ সালে।

➡সরকার কৃষকের স্বার্থে সার আমদানী নিষিদ্ধ করেছে -এসএসপি

➡বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনষ্টিটিউট প্রতিষ্ঠিত হয় -১৯৭১ সালে।

➡বাংলাদেশে কৃষি গবেষণা ইনষ্টিটিউট তার কার্যক্রম শুরু করে -১৯৭৩ সালে।

➡বাংলাদেশে সর্বাপেক্ষা বেশী পাওয়া যায় -কৃষ্ণ বঙ্গ জাতের ছাগল

➡ভারতের বিহার রাজ্যের যমুনা পাড়ের ছাগল বংশধর বাংলাদেশে পরিচিত- রাম ছাগল।

➡মহিষ প্রজনন খামার -বাগেরহাট।

➡বাংলাদেশ গবাদি পশু গবেষণা ইনস্টিটিউট অবস্থিত-ঢাকার সাভারে।

➡বাংলাদেশ কেন্দ্রিয় গো প্রজনন ও দুগ্ধ খামার
অবস্থিত-সাভারে।

➡দেশে বর্তমানে ভেটেরেনারী কলেজ চালু রয়েছে -৪টি।

➡ছাগল উন্নয়ন খামার -সিলেটের টিলাগড়ে।

➡প্রানিজ আমিষের প্রধান উৎস -মাছ।

➡বাংলাদেশে সরকারী মৎস্য প্রজনন কেন্দ্র হ্যাচারী ও খামার আছে-৮৬টি।

➡বাংলাদেশের স্বাদু পানিতে মাছের প্রজাতির সংখ্যা -২৭০।

➡বর্তমানে সমুদ্র উপকুল থেকে পাওয়া যায় মোট মৎস্য উৎপাদনের শতকরা ভাগ-২৭ ভাগ।

➡চিংড়ি চাষ কর আইন কবে প্রণীত হয়- ১৯৯২ সালে।

➡বাংলাদেশে সামুদ্রিক জলাশয়ের মোট আয়তন -১,৬৬,০০০ বর্গ কি.মি।

➡বাংলাদেশের একমাত্র মৎস্য গবেষণা ইনষ্টিটিউট অবস্থিত-ময়মনসিংহ।

➡চিংড়ি মাছের উপর গবেষণা হয় -খুলনার পাইকগাছায়।

➡বাংলাদেশের মৎস্য আইনে সেন্টিমিটারের কম হলে রুই (কার্প) জাতীয় মাছ ধরা নিষেধ-২৩ সেন্টিমিটার।

➡বঙ্গোপসাগরের মৎস্য চারণ ক্ষেত্র -চারটি।

➡নিমগ্ন মহাগহবর -একটি মৎস্যচারণ ক্ষেত্র।

➡রেনু পোনা কখন ছাড়ে-বর্ষাকালে।

➡বাংলাদেশের প্রধান প্রাণিজ সম্পদ-মাছ।
পুকুরে মাছ বাচে না- ইলিশ।

➡সবচেয়ে বেশি ধান হয়- ময়মনসিংহে

➡ধান উৎপাদনে শীর্ষদেশ- চীন

➡চাল রপ্তানিতে শীর্ষদেশ- থাইল্যান্ড

➡বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইন্সটিটউট- বিরি(BRRI), জয়দেবপুরে

➡বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইন্সটিটউট- বারি(BARI), জয়দেবপুর
➡সংকলন – মোস্তাফিজার মোস্তাক

Check Also

১৪ তম বিসিএস প্রিলিমিনারী পরীক্ষার MCQ প্রশ্নের সমাধান

১৪ তম বিসিএস প্রিলিমিনারী পরীক্ষার MCQ প্রশ্নের সমাধান – 14th BCS Priliminary Question Solution

১৪ তম বিসিএস প্রিলিমিনারী পরীক্ষার MCQ প্রশ্নের সমাধান 1. জমি থেকে খাজনা আদায় আল্লাহর আইনের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *