বিসিএস প্রিলিমিনারি বাংলাদেশ বিষয়াবলি – বাংলাদেশের সংবিধান

বিসিএস প্রিলিমিনারি বাংলাদেশ বিষয়াবলি
বাংলাদেশের সংবিধান

বাংলাদেশের সংবিধান
?বাংলাদেশ- একটি গণপ্রজাতন্ত্রী রাষ্ট্র
?বাংলাদেশের সরকার পদ্ধতি- এককেন্দ্রীক
?গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আইন- সংবিধান
?দেশের সর্বোচ্চ আইন প্রণয়নকারী কর্তৃপক্ষ- শাসন বিভাগ
?বাংলাদেশের সংবিধানে মোট ভাগ- ১১টি
?সংবিধানে অনুচ্ছেদ আছে- ১৫৩টি
?সংবিধানে তফসিল আছে- ৭টি
?সংবিধানে মূলনীতি আছে- ৪টি
?সংবিধানের রূপকার- ড. কামাল হোসেন
?সংবিধান রচনা কমিটির সদস্য- ৩৪ জন(প্রধান ছিলেন- ড. কামাল হোসেন)

?সংবিধান রচনা কমিটির একমাত্র বিরোধী দলীয় সদস্য- সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত
?সংবিধান রচনা কমিটির একমাত্র মহিলা সদস্য- বেগম রাজিয়া বানু
?বাংলাদেশের সংবিধান তৈরি করা হয়- ভারত ও বৃটেনের সংবিধানের আলোকে
?বাংলাদেশের সংবিধান জাতীয় সংসদে উত্থাপন করেন- ড. কামাল হোসেন
?সংবিধান সর্বপ্রথম গণপরিষদে উত্থাপিত হয়- ১৯৭২ সালের ১২ অক্টোবর
?সংবিধান গণপরিষদে গৃহীত হয়- ১৯৭২ সালের ৪ নভেম্বর
?সংবিধান কার্যকর হয়- ১৬ ডিসেম্বর ১৯৭২
?সংবিধান দিবস- ৪ নভেম্বর
?হস্তলিখিত লিখিত সংবিধানের অঙ্গসজ্জা করেন- শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন
?সংবিধান- ২ প্রকার; লিখিত সংবিধান ও অলিখিত সংবিধান
?বাংলাদেশের সংবিধান- লিখিত সংবিধান
?লিখিত সংবিধান নেই- বৃটেন, নিউজিল্যান্ড, স্পেন ও সৌদি আরব
?বিশ্বের সবচেয়ে বড় সংবিধান- ভারতের; আর ছোট- মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের
?বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী- ১৪ বছরের নিচের শিশুদের শ্রমে নিয়োগ করা যাবে না
?সংবিধান অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্য ন্যূনতম বয়স- ৩৫ বছর
?সংবিধান অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার জন্য ন্যূনতম বয়স- ২৫ বছর
?সংবিধান অনুযায়ী সংসদ সদস্য ও স্পিকার হওয়ার জন্য ন্যূনতম বয়স- ২৫ বছর
?এক ব্যক্তি রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হতে পারেন- ২ বার/মেয়াদকাল
?রাষ্ট্রপতি পদত্যাগ করেন- স্পিকারের কাছে
?প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ করেন- রাষ্ট্রপতির কাছে
?জাতীয় সংসদের/আইনসভার প্রধান/সভাপতি- স্পিকার
?সংসদীয় পদ্ধতিতে সর্বোচ্চ পদমর্যাদার অধিকারী- রাষ্ট্রপতি
?প্রতিরক্ষা বিভাগের সর্বাধিনায়ক/প্রধান- রাষ্ট্রপতি
?সংসদ অধিবেশন আহ্বান, ভঙ্গ ও স্থগিত করেন- রাষ্ট্রপতি
?প্রধান বিচারপতিকে নিয়োগ দেন- রাষ্ট্রপতি
?তত্ত্বাবধায়ক সরকার দায়বদ্ধ- রাষ্ট্রপতির কাছে
?নির্বাচন কমিশনারদের নিয়োগ দেন- রাষ্ট্রপতি
?রাষ্ট্রপতিকে অপসারণ করতে- ২/৩ অংশ ভোট দরকার
?বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালত- সুপ্রিম কোর্ট
?সুপ্রিম কোর্টের বিভাগ- ২টি (আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগ)
?সংবিধান নাগরিকদের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করার দায়িত্ব দিয়েছে- হাইকোর্টকে
?প্রধান বিচারপতিকে নিয়োগ দেন- রাষ্ট্রপতি
?নির্বাচন কমিশনারদের নিয়োগ দেন- রাষ্ট্রপতি

সংবিধানের গুরুত্বপূর্ণ ধারাসমূহ ও বিষয়বস্তু:

?২.খ রাষ্ট্রধর্ম
?৩ রাষ্ট্রভাষা
?৬ বাংলাদেশি নাগরিকত্ব
?১০ জাতীয় জীবনে মহিলাদের সমান অংশগ্রহণ
?১১ গণতন্ত্র ও মানবাধিকার
?১২ বিলুপ্ত (ধর্মনিরপেক্ষতা) (আরেকটা বিলুপ্ত- ৯২ক)
?১৭ অবৈতনিক ও বাধ্যতামূলক শিক্ষা
?২২ নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগ পৃথকীকরণ
?২৩ (ক) আদিবাসী/উপজাতি সংক্রান্ত ধারা
?২৭ আইনের দৃষ্টিতে সাম্য
?২৮(২) নারী ও পুরুষের সমানাধিকার
?৩৯(১) চিন্তা ও বিবেকের স্বাধীনতা
?৩৯(২)ক বাকস্বাধীনতা ও ভাবপ্রকাশের স্বাধীনতা
?৩৯(২)খ সংবাদপত্রের স্বাধীনতা
?৬৩- যুদ্ধ
?৬৪- অ্যাটনী জেনারেল
?৭৭ ন্যায়পাল নিয়োগ
?৮১-অর্থবিল (টীকা হিসেবে অনেকবার এসেছে, টীকা হিসেবে তাই খুব ই গুরুত্বপূর্ণ)
?৮৩-অধ্যাদেশ প্রনয়নের ক্ষমতা
?১১৭-প্রশাসনিক ট্রাইবুনাল
?১৪১( ক)- জরুরি অবস্থা ঘোষণা

সংবিধানের ১১টি ভাগ মনে রাখার উপায়ঃ

✅(প্র রা মৌ নি আ বি নি ম বাং জ সং বি)

?আসুন, মিলিয়ে নেই-

➡১. প্রজাতন্ত্র

➡২. রাষ্ট্র পরিচালনার মূলনীতি

➡৩. মৌলিক অধিকার

➡৪. নির্বাহী বিভাগ

➡৫. আইন সভা

➡৬. বিচার বিভাগ

➡৭. নির্বাচন

➡৮. মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক

➡৯. বাংলাদেশের কর্মবিভাগ

➡৯. ক। জ- জরুরী বিধানাবলী

➡১০. সংবিধান সংশোধন

➡১১. বিবিধ

অনুচ্ছেদ ১-১২

➡অনুচ্ছেদ ১-১২ মোটামুটি এমনি মনে থাকে। এই অনুচ্ছেদ গুলোর মধ্যে গুরুত্তপূর্ন অনুচ্ছেদ গুলো হল-

?২- প্রজাতন্ত্রের রাষ্ট্রীয় সীমানা
?২ক- রাষ্ট্রধর্ম ( মনে রাখবেন কোন সংশোধনীর মাধ্যমে এটি হয়েছে)
?৪ক- প্রতিকৃতি (১৫ তম সংশোধনীতে পরিবর্তন হয়েছে এখানে)
?৬- নাগরিকত্ব
?৭- সংবিধানের প্রাধান্য
?৮- মূলনীতিসমূহ ( সংবিধান সংশোধন হয়েছে এইখানে)
?৯- স্থানীয় শাসন সংক্রান্ত প্রতিষ্ঠান সমূহের উন্নয়ন ( সংবিধান সংশোধন হয়েছে এইখানে)
?১০- জাতীয় জীবনে মহিলাদের অংশগ্রহন
?১১- গনতন্ত্র
?১২- ধর্মনিরপেক্ষতা ( সংবিধান সংশোধন হয়েছে এইখানে)

অনুচ্ছেদ ১৩-২৫
➡অনুচ্ছেদ ১৩ থেকে অনুচ্ছেদ ২৫ পর্যন্ত মনে রাখার কৌশল

✅(মালি কৃষককে মৌ গ্রামে নিয়ে গিয়ে অবৈতনিক জনস্বাস্থ্যের জন্য সুযোগের সমতা সৃষ্টি করে। এতে অধিকার ও কর্তব্য রূপে নাগরিকরা নির্বাহী বিভাগ থেকে জাতীয় সংস্কৃতি ও জাতীয় স্মৃতি নিদর্শনের জন্য আন্তর্জাতিক শান্তির অংশীদার হলেন।)

➡ছন্দের সাথে অনুচ্ছেদ গুলো মিলেয়ে নিন-

?১৩-মালি- মালিকানার নীতি

?১৪-কৃষক- কৃষক ও শ্রমিকের মুক্তি

?১৫- মৌ- মৌলিক প্রয়োজনের ব্যবস্থা

?১৬- গ্রাম- গ্রামীন উন্নয়ন ও কৃষি বিপ্লব

?১৭- অবৈতনিক- অবৈতনিক ও বাধ্যতা মূলক শিক্ষা

?১৮ – জনস্বাস্থ্য ও নৈতিকতা

?১৯ – সুযোগের সমতা

?২০- অধিকার ও কর্তব্য রূপে- অধিকার ও কর্তব্য রূপে কর্ম

?২১- নাগরিক- নাগরিক ও সরকারী কর্মচারীদের কর্তব্য

?২২- নির্বাহী বিভাগ থেকে- নির্বাহী বিভাগ হইতে বিচার বিভাগের পৃথকীকরন

?২৩- জাতীয় সংস্কৃতি- জাতীয় সংস্কৃতি

?২৪- জাতীয় স্মৃতি নিদর্শন -জাতীয় স্মৃতি নিদর্শন প্রভৃতি

?২৫-আন্তর্জাতিক শান্তি- আন্তর্জাতিক শান্তি, নিরাপত্তা ও সংহতির উন্নয়ন

অনুচ্ছেদ- ২৬ থেকে ৩১
➡অনুচ্ছেদ ২৬ থেকে অনুচ্ছেদ ৩১ পর্যন্ত মনে রাখার কৌশল

✅(মৌলিক অধিকার আইনের দৃষ্টিতে ধর্ম , সরকারী নিয়োগ ও বিদেশী খেতাব গ্রহনে সকলের আইনের আশ্রয় লাভের অধিকার রয়েছে)

➡ছন্দের সাথে অনুচ্ছেদ গুলো মিলেয়ে নিন-

?২৬-মৌলিক অধিকার- মৌলিক অধিকারের সহিত অসামঞ্জস্য আইন বাতিল

?২৭-আইনের দৃষ্টিতে – আইনের দৃষ্টিতে সমতা

?২৮- ধর্ম- ধর্ম প্রভৃতি কারনে বৈষম্য

?২৯- সরকারী নিয়োগ- সরকারী নিয়োগ লাভে সুযোগের সমতা

?৩০- বিদেশী খেতাব গ্রহনে- বিদেশী খেতাব প্রভৃতি গ্রহন নিষিদ্ধকরন

?৩১। আইনের আশ্রয় লাভের অধিকার

অনুচ্ছেদ- ৩২ থেকে ৩৫

➡অনুচ্ছেদ ৩২ থেকে অনুচ্ছেদ ৩৫ পর্যন্ত মনে রাখার কৌশল

✅(জীবনে ১বার গ্রেপ্তার হলে জবরদস্তি বিচার হয়)

➡ছন্দের সাথে অনুচ্ছেদ গুলো মিলেয়ে নিন-

?৩২-জীবনে- জীবন ও ব্যক্তি স্বাধীনতার অধিকার রক্ষণ

?৩৩-গ্রেপ্তার – গ্রেপ্তার ও আটক সম্পর্কে রক্ষাকবচ

?৩৪- জবরদস্তি- জবরদস্তি শ্রম নিষিদ্ধকরন

?৩৫- বিচার- বিচার ও দণ্ড সম্পর্কে রক্ষণ

অনুচ্ছেদ- ৩৬ থেকে ৩৯

➡অনুচ্ছেদ ৩৬ থেকে অনুচ্ছেদ ৩৯ পর্যন্ত মনে রাখার কৌশল

(চসমা সংবা(দ)ক)

➡ছন্দের সাথে অনুচ্ছেদ গুলো মিলেয়ে নিন-

?৩৬-চ-চলাফেরার স্বাধীনতা

?৩৭-সমা – সমাবেশের স্বাধীনতা

?৩৮- সং- সংগঠনের স্বাদহীনটা

?৩৯- বাদ(ক)- চিন্তা ও বিবেকের স্বাধীনতা এবং বাক স্বাধীনতা

অনুচ্ছেদ- ৪০ থেকে ৪৩

➡অনুচ্ছেদ ৪০ থেকে অনুচ্ছেদ ৪৩ পর্যন্ত এভাবে মনে রাখতে পারেন-

✅(পেধসগৃ)

➡ছন্দের সাথে অনুচ্ছেদ গুলো মিলেয়ে নিন-

?৪০-পে-পেশা বা বৃত্তির স্বাধীনতা

?৪১-ধ – ধর্মীয় স্বাধীনতা

?৪২- স- সম্পত্তির অধিকার

?৪৩- গৃ- গৃহ ও যোগাযোগের রক্ষণ

?অথবাঃ

অনুচ্ছেদ- ৩৬ থেকে ৪৩

➡অনুচ্ছেদ ৩৬ থেকে অনুচ্ছেদ ৪৩ পর্যন্ত মনে রাখার কৌশল

✅(চল, সমাবেশ ও সংগঠন করি, চিন্তা-পেশা, ধর্ম-সম্পত্তি ও যোগাযোগের স্বাধীনতা অর্জন করি)

➡ছন্দের সাথে অনুচ্ছেদ গুলো মিলেয়ে নিন-

?৩৬-চল-চলাফেরার স্বাধীনতা

?৩৭-সমাবেশ– সমাবেশের স্বাধীনতা

?৩৮- সংগঠন- সংগঠনের স্বাদহীনটা

?৩৯- চিন্তা- চিন্তা ও বিবেকের স্বাধীনতা এবং বাক স্বাধীনতা

?৪০-পেশা-পেশা বা বৃত্তির স্বাধীনতা

?৪১-ধর্ম – ধর্মীয় স্বাধীনতা

?৪২- সম্পত্তি- সম্পত্তির অধিকার

?৪৩-যোগাযোগের – গৃহ ও যোগাযোগের রক্ষণ

?৪৪- মৌলিক অধিকার বলবৎ করন

অনুচ্ছেদ- ৪৮ থেকে ৫৪

➡অনুচ্ছেদ ৪৮ থেকে অনুচ্ছেদ ৫৪ পর্যন্ত মনে মনে রাখার কৌশল

✅(রাষ্ট্রপতি তার ক্ষমার মেয়াদে দায়মুক্তি পেতে অভিসংশন ও অপসারনের ক্ষমতা স্পীকার কে দিলেন।)

➡ছন্দের সাথে অনুচ্ছেদ গুলো মিলেয়ে নিন-

?৪৮-রাষ্ট্রপতি -রাষ্ট্রপতি

?৪৯-ক্ষমার –ক্ষমা প্রদর্শনের অধিকার

?৫০- মেয়াদে- রাষ্ট্রপতি পদের মেয়াদ

?৫১- দায়মুক্তি- রাষ্ট্রপতির দায়মুক্তি

?৫২-অভিসংশন –রাষ্ট্রপতির অভিসংশন

?৫৩-অপসারনের – অসামর্থ্যের কারনে রাষ্ট্রপতির অপসারন

?৫৪- স্পীকার- অনুপস্থিতি প্রভৃতির কালে রাষ্ট্রপতি পদে স্পীকার

অনুচ্ছেদ- ৫৫ থেকে ৫৮

➡অনুচ্ছেদ ৫৫ থেকে অনুচ্ছেদ ৫৮ পর্যন্ত মনে মনে রাখার কৌশল

✅(মন্ত্রিসভায় মন্ত্রিগণ প্রধানমন্ত্রী ও অন্যান্য মন্ত্রীর পদের মেয়াদ ঠিক করেন।)

➡ছন্দের সাথে অনুচ্ছেদ গুলো মিলেয়ে নিন-

?৫৫-মন্ত্রিসভায়- মন্ত্রিসভা

?৫৬-মন্ত্রিগণ- মন্ত্রিগণ

?৫৭- প্রধানমন্ত্রী- প্রধানমন্ত্রী পদের মেয়াদ

?৫৮-অন্যান্য মন্ত্রীর পদের মেয়াদ- অন্যান্য মন্ত্রীর পদের মেয়াদ

অনুচ্ছেদ- ৬৫ থেকে ৭৯

➡অনুচ্ছেদ ৬৫ থেকে অনুচ্ছেদ ৭৯ পর্যন্ত মনে মনে রাখার কৌশল

✅(সংসদ সদস্যগন শুন্য পারিশ্রমিকে অর্থদন্ড ও পদত্যাগের কারনে দ্বৈত অধিবেশেনে ভাষনের অধিকার স্পীকার কে দিলেন। কিন্তু কোরাম না থাকায় স্থায়ী কমিটি ন্যায়পাল নিয়োগে বিশেষ অধিকার ও দায়মুক্তি পেতে সচিবালয় গঠন করেন।)

➡ছন্দের সাথে অনুচ্ছেদ গুলো মিলেয়ে নিন-

?৬৫-সংসদ –সংসদ প্রতিষ্ঠা

?৬৬-সদস্যগন –সংসদে নির্বাচিত হইবার যোগ্যতা ও অযোগ্যতা

?৬৭- শুন্য- সদস্যদের আসন শুন্য হওয়া

?৬৮- পারিশ্রমিকে- সংসদ সদস্যদের পারিশ্রমিক প্রভৃতি

?৬৯-অর্থদন্ড– শপথ গ্রহনের পূর্বে আসন গ্রহন বা ভোট দান করিলে সদস্যের অর্থদন্ড

?৭০-পদত্যাগের কারনে – পদত্যাগ ইত্যাদি কারনে আসন শূন্য হওয়া

?৭১- দ্বৈত- দ্বৈত সদস্যতায় বাঁধা

?৭২-অধিবেশেনে –সংসদের অধিবেশেন

?৭৩-ভাষনের –সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণ ও বাণী

?৭৩ক-অধিকার- সংসদ সম্পর্কে মন্ত্রীগণের অধিকার

?৭৪- স্পীকার- স্পীকার ও ডেপুটি স্পীকার

?৭৫-কোরাম– কার্যপ্রনালী বিধি, কোরাম প্রভৃতি

?৭৬-স্থায়ী কমিটি – সংসদের স্থায়ী কমিটি সমূহ

?৭৭- ন্যায়পাল- ন্যায়পাল

?৭৮-সচিবালয়- সচিবালয়

আরো বেশ কিছু অনুচ্ছেদ আপনাদের নিজেদের প্রয়োজনে পড়তেই হবে। সেগুলো হলঃ

* অনুচ্ছেদ-৪৬- দায়মুক্তি বিধানের ক্ষমতা
* অনুচ্ছেদ-৬৩- যুদ্ধ
* অনুচ্ছেদ- ৬৪- অ্যাটনী জেনারেল
* অনুচ্ছেদ- ৮১-অর্থবিল (টীকা হিসেবে অনেকবার এসেছে, টীকা হিসেবে তাই খুব ই গুরুত্বপূর্ণ)
* অনুচ্ছেদ-৮৩-অধ্যাদেশ প্রনয়নের ক্ষমতা
* অনুচ্ছেদ- ১১৭-প্রশাসনিক ট্রাইবুনাল
* অনুচ্ছেদ- ১২২-ভোটার তালিকায় নামভুক্তির যোগ্যতা
* অনুচ্ছেদ-১৪১ ক, খ, গ- জরুরী অবস্থা
* অনুচ্ছেদ- ১৪২-সংবিধান সংশোধন
* ১৪৫ক- আন্তর্জাতিক চুক্তি
* ১৪৮- পদের শপথ

➡সংকলন – মোস্তাফিজার মোস্তাক

Check Also

৪১ ও ৪২তম বিসিএস প্রিলিমিনারির তারিখ জানাল পিএসসি

৪১ ও ৪২তম বিসিএস প্রিলিমিনারির তারিখ জানাল পিএসসি

বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি) ৪১তম ও ৪২তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ করেছে। আজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *