বিসিএস প্রিলিমিনারি বাংলাদেশ বিষয়াবলি – বাংলার প্রাচীন যুগ

বাংলার প্রাচীন যুগ

বাংলার প্রথম
➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖
?প্রথম সাম্রাজ্য- মৌর্য
?প্রথম স্বাধীন রাজা- শশাঙ্ক
?প্রথম স্বাধীন সুলতান- ফখরুদ্দীন মোবারক শাহ
?শেষ হিন্দু রাজা- লক্ষণ সেন

⏺মৌর্য সাম্রাজ্য
➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖
▶মৌর্যবংশের রাজাদের ক্রম-
>চন্দ্রগুপ্ত মৌর্য
> বিন্দুসর
> সম্রাট অশোক
> দাশরথ
> সম্প্রতি
> সালিশুকা
> দেববর্মণ
> শতধনবান
> বৃহদ্রথা

?প্রতিষ্ঠাতা- চন্দ্রগুপ্ত মৌর্য

?রাজধানী- পাটলীপুত্র

?প্রথম সর্বভারতীয় রাষ্ট্র/ ভারতীয় উপমহাদেশে প্রথম সাম্রাজ্য- মৌর্য সাম্রাজ্য

?প্রথম সর্বভারতীয় রাষ্ট্র/ ভারতীয় উপমহাদেশে

?প্রথম সাম্রাজ্য স্থাপন করেন- চন্দ্রগুপ্ত মৌর্য

?সম্রাট অশোক ছিলেন – মৌর্য সম্রাট

?সম্রাট অশোক বৌদ্ধধর্ম গ্রহণ করেন- কলিঙ্গ যুদ্ধের ভয়াবহতা দেখে

?প্রাচীন ভারতের সর্বপ্রথম সর্বভারতীয় সম্রাট- চন্দ্রগুপ্ত মৌর্য

?মৌর্য সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতা – চন্দ্রগুপ্ত মৌর্য

?সর্বশেষ মৌর্য সম্রাট – বৃহদ্রথ

?দ্বিতীয় চন্দ্রগুপ্তের উপাধি ছিল – বিক্রামাদিত্য

?ভারত বর্ষ থেকে গ্রীকদের বিতাড়িত করেন – চন্দ্রগুপ্ত

?নন্দবংশের শেষ রাজাকে পরাজিত করে মগধ্ দখল করেন – চন্দ্রগুপ্ত

?ইন্ডিকা (Indika) নামক বিবরনমুলক গ্রন্থের লেখক – মেগাস্থিনিস

?অর্থশাস্ত্র’ গ্রন্থটির লেখক – কৌটিল্য

?কৌটিল্য আমলে  চন্দ্রগুপ্তের প্রধান পরামর্শদাতা ও সাহায্যকারী – চানক্য ও বিষ্ণুগুপ্ত

?মৌর্য সাম্রাট অশোক ছিলেন – বিন্দু সারের পুত্র

?অশোক কলিঙ্গ জয়ে বের হন  – ২৬০ খ্রিস্ট পূর্বাব্দে

?মৌর্য যুগে বাংলার প্রাদেশিক রাজধানী ছিল – পুন্ডনগর

গুপ্ত সাম্রাজ্যঃ
➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖
▶গুপ্তবংশের রাজাদের ক্রম-
>শ্রীগুপ্ত
>ঘটোৎকচ
>প্রথম চন্দ্রগুপ্ত
> নিশামুসগুপ্ত
> সমুদ্রগুপ্ত
> রামগুপ্ত
> দ্বিতীয় চন্দ্রগুপ্ত
> প্রথম কুমারগুপ্ত
> স্কন্ধগুপ্ত
> পুরুগুপ্ত
> দ্বিতীয় কুমারগুপ্ত
> বুদ্ধগুপ্ত
> নরসিংহগুপ্ত বালাদিত্য
> তৃতীয় কুমারগুপ্ত
> বিষ্ণুগুপ্ত
> বৈন্যগুপ্ত
> ভানুগুপ্ত

?প্রতিষ্ঠাতা – শ্রীগুপ্ত (শ্রীগুপ্ত না থাকলে উত্তর দিতে হবে চন্দ্রগুপ্ত বা প্রথম চন্দ্রগুপ্ত)

?গুপ্ত সাম্রাজ্যের গোড়া পত্তন হয় ৩২০ খ্রিঃ পূর্বাব্দে

?গুপ্তযুগে বঙ্গের ভাগ  ছিল – দুটি

?গুপ্ত বংশের শ্রেষ্ঠ রাজা- সমুদ্রগুপ্ত

?চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যর রাজধানী- পাটলীপুত্র

?সমুদ্রগুপ্তের মুদ্রা- অশ্বমেধ পরিক্রমা

?ফা-হিয়েন ভারতবর্ষে আসেন- দ্বিতীয় চন্দ্রগুপ্তের আমলে

?দ্বিতীয় চন্দ্রগুপ্তের উপাধি- বিক্রমাদিত্য, সিংহবীর

?অজান্তার গুহাচিত্রের সৃস্টি – গুপ্তযুগে

?ভারতীয় নেপোলিয়ন বলা হত – সমুদ্রগুপ্তকে

?কালিদাস ছিলেন – গুপ্ত যুগের কবি

?কালিদাসের মহাকাব্য- মেঘদূত

?সর্ব প্রথম  চীনা পরিব্রাজক ভারতবর্ষে আগমন করেন – ফা-হিয়েন

?ফা-হিয়েন য়ে ভারতবর্ষ পরিভ্রমন করেন  দ্বিতীয় চন্দ্রগুপ্ত সময়ে

?ফা-হিয়েনের ভারত পরিভ্রমনের কারণ  ছিল –

?বৌদ্ধ ধর্মপুস্তক ‘বিনায়াপিটক’ এর মূল রচনা সংগ্রহ করা

?ফা-হিয়েন ভারতবর্ষে অবস্থান করেন – তিন বছর

?গুপ্ত সাম্রাজ্যের পতন ঘটে  – স্কন্দগুপ্তের বিক্রমাদিত্যের জীবনাবসনে

?গুপ্ত বংশের রাজত্বকাল স্থায়ী হয়েছিল – ৩২০-৫৫০ খ্রিঃ

?গুপ্ত বংশের মধ্যে স্বাধীন ও শক্তিশালী রাজা  ছিলেন – ১ম চন্দ্রগুপ্ত

?১ম চন্দ্রগুপ্তের উপাধি  ছিল – রাজাধিরাজ

?সমূদ্রগুপ্ত  সিংহাসনে আরোহন করেছিল – ৩৩৫ খ্রিঃ

?সমূদ্রগুপ্ত রাজ্য শাসন করেন – ৪৫ বছর (৩৮০ খ্রিঃ পর্যন্তু)

?সমূদ্রগুপ্তের পিতা ছিলেন – ১ম চন্দ্রগুপ্ত

?মহাকবি কালিদাস সভাকবি ছিলেন – ২য় চন্দ্রগুপ্ত

?২য় চন্দ্রগুপ্ত-এর রাজত্বকাল ছিল – ৩৮০-৪১৩ খ্রিঃ

উপমহাদেশে আলেকজান্ডারের আগমনঃ
?আলেকজান্ডার ছিলেন- গ্রিসের অধিবাসী

?আলেকজান্ডার- মেসিডোনিয়ার রাজা

?প্রথম আক্রমণ করেন- হিন্দুকুশ পর্বত

?ভারত আক্রমণে সৈন্যসংখ্যা- ৪০ হাজার

?আলেকজান্ডারের গৃহশিক্ষক- এরিস্টটল

⏺গুপ্ত বংশের পতনের পর বাংলায় এক  অরাকজ অবস্থার উদ্ভব হয় । সে সময়ে কোন শক্তিশালী কেন্দ্রীয় শাসন না থাকায় বাংলার বিভিন্ন অঞ্চলে অনেকগুলো স্থানীয় শাসনকর্তার উদ্ভব হয় এবং তারা তাদের ইচ্ছেমত শাসন করতে থাকে । এই নেতৃত্বহীন অরাজক সময়টাকে ইতিহাসে ‘মাৎসান্যায়বলে অভিহিত করা হয়েছে ।

⏺এ অরাজক অবস্থার অবসান হয় বাংলার প্রথম স্বাধীন সম্রাট শশাঙ্ক গৌড়ের সিংহাসনে বসলে । ধারণা করা হয়, তিনি বাঙালি বা স্থানীয় ছিলেন । সেই হিসেবে মুক্তিযুদ্ধের আগে শশাঙ্কই বাংলার সর্বশেষ বাঙালি অধিপতি ।

গৌড় বংশ
➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖
?প্রথম ও শ্রেষ্ঠ রাজা- শশাঙ্ক

?গৌড় রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতা – শশাঙ্ক

?শশাঙ্কের উপাধি – মহাসামন্ত, রাজাধিরাজ

?শশাঙ্কের রাজধানী- কর্ণসুবর্ণ (মুর্শিদাবাদ)

?নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন- রাজা হর্ষবর্ধন

?হর্ষবর্ধনের সভাকবি- বাণভট্ট

?চীনা বৌদ্ধ পন্ডিত হিউয়েন সাঙ ভারতে আসেন –  রাজা হর্ষবর্ধন এর আমলে

পাল বংশঃ
➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖
?পালবংশের রাজাদের ক্রম-

>প্রথম গোপাল
> ধর্মপাল
> দেবপাল
> মহেন্দ্রপাল/প্রথম সূরপাল/প্রথম বিগ্রহপাল
> নারায়ণপাল
> রাজপাল
> দ্বিতীয় গোপাল
> দ্বিতীয় বিগ্রহপাল
> প্রথম মহীপাল
> ন্যায়পাল
> তৃতীয় বিগ্রহপাল
> দ্বিতীয় মহীপাল
> দ্বিতীয় সূরপাল
> রামপাল
> কুমারপাল
> তৃতীয় গোপাল
> মনদপাল
> গোবিন্দপাল

?প্রতিষ্ঠাতা- গোপাল

?শ্রেষ্ঠ রাজা- ধর্মপাল

?পাল বংশের রাজারা রাজত্ব করেন- ৪০০ বছর

?সোমপুর বিহার প্রতিষ্ঠা করেন- ধর্মপাল

?সোমপুর বিহার- নওগাঁ জেলার পাহাড়পুর

?বাংলায় পাল বংশের শেষ রাজা- রামপাল

সেন বংশঃ
➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖
?সেনবংশের রাজাদের ক্রম-

>হেমন্ত সেন
>বিজয় সেন
>বল্লাল সেন
>লক্ষ্মণ সেন
>বিশ্বরূপ সেন
>কেশব সেন

?প্রতিষ্ঠাতা- হেমন্ত সেন

?শেষ্ঠ রাজা/সম্রাট- বিজয়সেন

?বিজয় সেনের উপাধি- গৌড়েশ্বর

?বল্লাল সেনের রচনা – দানসাগর, অদ্ভূত সাগর

?সেন বংশের শেষ রাজা – লক্ষণ সেন

?বাংলার শেষ হিন্দু রাজা- লক্ষণ সেন

?লক্ষণ সেনের উপাধি- পরমেশ্বর, পরম ভট্টারক, মহারাজাধিরাজ

?বখতিয়ার খিলজী বাংলা আক্রমণ করেন- ১২০৪ খ্রিস্টাব্দে

?লক্ষ্মণ সেনের শাসনামলের শেষদিকে ইখতিয়ার উদ্দীন মুহম্মদ বিন বক্তিয়ার খিলজীর কাছে পরাজিত হয়ে সেন সাম্রাজ্য বাংলার শাসনাধিকার হারায়।

বিভিন্ন শাসনামলে বাংলার রাজধানীঃ
➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖
?মৌর্য বংশ – গৌড়

?গুপ্ত বংশ – গৌড়

?গৌড় (শশাঙ্ক) – কর্ণসুবর্ণ (মুর্শিদাবাদ)

?মৌর্যযুগ – পুণ্ড্রবর্ধন (মহাস্থানগড়)

?চন্দ্রগুপ্ত মৌর্য – পাটলিপুত্র

?ঈশা খাঁ – সোনারগাঁও

?পুণ্ড্র জনপদ – পুণ্ড্রবর্ধন (মহাস্থানগড়)

?লক্ষণ সেন – নদীয়া বা নবদ্বীপ

?গুপ্ত রাজবংশ – বিদিশা

সুলতানি আমল
➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖➖
?ইখতিয়ার উদ্দিন মুহম্মদ বখতিয়ার খিলজী নদীয়া আক্রমন করে – ১২০৪ খ্রিঃ

?যে সম্রাট অশ্ববিক্রেতার বেশে নদীয়া আক্রমন করেন – বখতিয়ার খলজি

?বখতিয়ার খলজি যে স্থানে মৃত্যুবরন করেন – দেবকোটে

?বখতিয়ার খলজি বাংলাদেশ জয় করেন – ১৭ জন সৈন্য নিয়ে

?বাংলায় মুসলিম আধিপত্য প্রতিষ্ঠিত হয় – ত্রয়োদশ শতকে

?সুলতান মাহমুদ ছিলেন — গজনীর অধিপতি

?সুলতান মাহমুদ ভারতবর্ষ আক্রমন করে কত বার –  ১৭ বার

?সুলতাল মাহমুদ ভারত আক্রমন করেন – ১০০০ সালে

?সুলতান মাহমুদের সভাকবি কে ছিলেন – মহাকবি ফেরদৌসি

?সুলতানী আমলে লোকেরা বেচাকেনার জন্য ব্যবহার করত – রৌপ্য মুদ্রা

?আল বিরুনী নামকরা দার্শনিক ও জ্যের্তিবিদ হিসাবে কর্মরত ছিলেন — সুলতান মাহমুদের

?সুলতান মাহমুদ বারবার ভারত আক্রমনের করেন –  ধনসম্পদ লুট করার জন্য

?মুহম্মদ ঘুরী ও পৃথ্বীরাজের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয় – তরাইনের প্রথম যুদ্ধ

?দিল্লীর সিংহাসনে আরোহনকারী প্রথম মুসলমান নারী — সুলতানা রাজিয়া

?পরিব্রাজক ইবনে বতুতা যার সময়ে দিল্লীতে আসেন– মুহাম্মদ বিন তুঘলক এর সময়ে

?ইবনে বতুতা যে দেশের অধিবাসী ছিলেন – – উত্তর আফ্রিকার মরক্কো

?পূর্বে বলঘকপুর বা বিদ্রোহের দেশ নামে পরিচিতি ছিল – বাংলা

?ইবনে বতুতা কেন বাংলাদেশকে ধনসম্পদপূণ নরক বা দোযখপুর নিয়ামত বলেন – সম্পদের ?প্রাচুর্য ও প্রতিকূল আবহাওয়ার জন্য

?বাংলার অপরূপ বর্ণনা পাওয়া যায় ইবনে বতুতার যে গ্রন্থে – কিতাবুল রেহালা

?দিল্লী হতে রাজধানী দেবগিরিতে স্থানান্তর করেন – – মুহম্মদ বিন তুঘলক

?ভারতে সর্বপ্রথম তুর্কী সাম্রাজ্য বিন্তার করেন – মুহাম্মদ ঘুরী

?ভারতে তুর্কী সাম্রাজ্যের প্রকৃত প্রতিষ্ঠাতা – কুতুবউদ্দিন আইবেক

?কুতুবউদ্দিন আইবেক মৃত্যুবরন করেন – ১২১০ সালে

?কোন সুলতান সুলতানই আজম খেতাবে ভুষিত হন – সুলতান ইলতুৎমিশ

?দিল্লীর কুতুব মিনার নির্মান করেন – সুলতান কুতুবউদ্দিন-এর সময় নির্মান শুরু এবং ইলতুৎমিশের প্রত্যক্ষ পৃষ্ঠপোষকতায় সমাপ্ত

?মুহম্‌দ বিন তুঘলক (উলুখ খান) দিল্লীর সিংহাসনে আসীন হয় – ১৩২৫ সালে

?ইব্রাহীম লোদী সিংহাসনে আরোহন করেন – ১৫১৭ সালে

?পানি পথের প্রথম যুদ্ধ সংঘটিত হয় – ১৫২৬ সালে, ইব্রাহিম লোদী ও সম্রাট বাবরের মধ্যে

?শাহ-ই- বাঙালা উপাধিতে ভুষিত করা হয় – সমগ্র বাংলার ১ম সুলতান শামছুদ্দীন ইলিয়াস শাহ

?বাংলার সুলতানদের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ সুলতান ছিলেন – আলাউদ্দিন হোসেন শাহ

?আলাউদ্দিন হোসেন শাহের রাজধানী ছিল – একডালা

?নাসিরউদ্দিন মাহমুদ বাংলার সিংহাসনে বসেন – ১৪৪২ সালে

?জালাল উদ্দিন মুহম্মদ নাম ধারন করে বাংলার সিংহাসনে আরোহণ করেন – রাজা গণেশের ছেলে যদু সেন

?যার পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলায় মহাভারত রচিত হয় – পরাগল খান ও ছুটি খান

?যে মুসলমান সুলতান সর্বপ্রথম সমগ্র বাংলার অধিপতি হন – ইলিয়াস শাহ

?মালদহের বড় পান্ডু্রয়ার বিখ্যাত আদিনা মসজিদ নির্মান করেন – সিকান্দার শাহ

?গৌড়ের কদম রসুল ও বড় সোনা মসজিদ কে নির্মান করেন – নসরত শাহ

?উত্তর আফ্রিকার পর্যটক ইবনে বতুতা পূর্ব বাংলায় কার এসেছিলেন – মুহম্মদ বিন তুঘলক আমলে

?যার শাসনামলে পীর খান জাহান আলী খুলনা অঞ্চলে ইসলাম ধর্ম প্রচারে নিয়োজিত হন – নাসিরুদ্দীন মুহাম্মদ শাহ

?বাংলার যে শাসনকর্তার সময় হযরত শাহজালাল (রাঃ) ধর্ম প্রচারে বাংলায় আসেন – সুলতান শামসুদ্দিন ফিরোজ শাহ

?বাংলায় মহাভারত রচিত হয় – পরাগল খান ও ছুটি খান এর পৃষ্ঠপোষকতায়

➡সংকলন – মোস্তাফিজার মোস্তাক
➖➖➖➖➖➖???➖➖➖➖➖➖

Check Also

৪১ ও ৪২তম বিসিএস প্রিলিমিনারির তারিখ জানাল পিএসসি

৪১ ও ৪২তম বিসিএস প্রিলিমিনারির তারিখ জানাল পিএসসি

বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি) ৪১তম ও ৪২তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষার তারিখ নির্ধারণ করেছে। আজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *