পরিবার নিয়ে যেভাবে ঈদ কাটালেন মিন্নি

২৬ জুন বরগুনার বহুল আলোচিত বরগুনার রিফাত শরীফ হত্যাকাণ্ডের এক বছর পূর্ণ হয়েছে। ২০১৯ সালের ২৬ জুন সকালে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে প্রকাশ্যে রিফাতকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে কিশোর গ্যাং বন্ড বাহিনী। এরপর বিকেলেই বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রিফাত। এ নির্মম হত্যার ঘটনাটি দেশে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

এখন ন্যায় বিচারের অপেক্ষায় রিফাতের পরিবার ঘটনার পরদিন ২৭ জুন তার বাবা মো. আবদুল হালিম দুলাল শরীফ ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ১২-১৩ জনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। দ্রুত গতিতে এ মামলার বিচার কাজ চলমান থাকলেও করোনা পরিস্থিতিতে আদালত বন্ধ হয়ে যাওয়ায় থেমে আছে বিচার কাজ।

ঈদ কেমন কাটলো? প্রশ্নের জবাবে মিন্নি নির্বিকার থাকলেও জবাব দিলেন তার বাবা মো. মোজাম্মেল হোসেন কিশোর।ক্ষোভ আর আক্ষেপের সুরে বলেন, এ সমাজ ব্যবস্থা এখন আর আগের মতো ভালো নেই। সত্যকে মিথ্যা, আর মিথ্যাকে সত্য এখন প্রচলিত হয়ে গেছে। মনে শান্তি নেই, ঈদুল আজহা তো দূরের কথা ঈদুল ফিতর হয়নি। এ পৃথিবীতে থাকার আর সাধ নেই।

আমাদের পরিবার শেষ করে দিছে ওরা, মিন্নির স্বপ্ন মাটি চাপা দিয়েছে। ওরা আমাদের ভালো থাকতে দেয়নি। ঈদ দিয়ে কি হবে। ঈদের আনন্দতো আমাদের মনে নেই। এখন এ পৃথিবীতে আর ভালো লাগে না। বিপদ আমার পিছু ছাড়ছে না। ঈদের দিন শুধু মেয়েরটার জন্য আর রিফাতের জন্য দোয়া করেছি।

তিনি আরো বলেন, কয়েকদিন আগে আমার বাবা দ্বিতীয়বার স্ট্রোক করেছে। স্ত্রীও অসুস্থ্ দীর্ঘদিন ধরে। মেয়েটা স্বাভাবিকভাবে চলাফেরাও করতে পারছে না। সব সময় মনমরা থাকছে। প্রতিদিন ওষুধ খাইয়ে ঘুমিয়ে রাখা লাগে। ওর পছন্দের ছেলের (রিফাত) সঙ্গেই বিয়ে দিয়েছিলাম। কিন্তু ওরা আমার মেয়ের স্বপ্ন অন্ধকারে ঠেলে দিলো, সংসার ভেঙ্গে দিলো।

কান্নাজড়িত কণ্ঠে মিন্নির বাবা কিশোর বলেন, আমার মেয়েকে হত্যার আসামি করা হয়েছে। আল্লাহ ঠিকই এ অভিযোগ থেকে মুক্তি দিবেন। তবে কিছু সুচক্রি মহল আমার মেয়েকে নিয়ে ফেসবুকে বিভিন্ন রকমের মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে। তাছাড়া আমার মেয়েকেও হুমকি দিয়েছে। একজনে ফেসবুকে লিখেছেন, মিন্নিকে যেখানেই পাবে সেখানেই হত্যা করবে। ঈদুল আযহার পরে আদালত খুললেই আমি তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা করবো।

Check Also

সংক্ষিপ্ত বিশ্ব সংবাদ: ২৮ জুন ২০২১

প্রতিদিনই আমাদের চারপাশে অসংখ্য ঘটনা ঘটছে। এর মধ্যে হয়তো আলোচনায় আসে হাতেগোনা কিছু। তবে সময় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *