ডিবির এক প্রশ্নে ‘চুপ’ হয়ে যান ডা. সাবরিনা

মহামারি করোনা ভাইরাসের ভুয়া ও জালিয়াতি রিপোর্ট দেয়ার দায়ে প্রতিষ্ঠানটির গ্রেফতার হওয়া চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনের তিন দিনের রিমান্ড শেষ হয়েছে শুক্রবার (১৭ জুলাই)। এর আগে বুধবার (১৫ জুলাই) রাতে ডিবি কার্যালয়ে তার সঙ্গে স্বামী আরিফ চৌধুরীকে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

মিন্টো রোডের ডিবি অফিসে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদের সময় ডা. সাবরিনা তার স্বামী আরিফকে দেখে উত্তেজিত হয়ে পড়েন। আরিফকে উদ্দেশ করে বলেন, তোর জন্যই আজ আমার এই অবস্থা। তুই আমাকে শেষ করে দিয়েছিস।

সবকিছু করে এখন আমাকে ফাঁসিয়েছিস। আরিফও পাল্টা জবাবে বলেন, সব দোষ কি আমার? তুমি তো এ প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান ছিলে। তুমিও জানতে সবকিছু।

এদিকে ডিবি কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদে ডা. সাবরিনা বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে নিজেকে নির্দোষ বলার চেষ্টা করেন। কিন্তু জিজ্ঞাসাবাদকারী কর্মকর্তা তার মোবাইল ফোনের মেসেজ দেখালে তিনি দাবি করেন, স্বামী আরিফ চৌধুরী তাকে এসব মেসেজ পাঠাতে বাধ্য করেছিলেন।

জেকেজির চেয়ারম্যান কিনা এ বিষয়ে তাকে জিজ্ঞেস করা হলে বিষয়টি অস্বীকার করেন। অবশ্য ঘটনা আলোচনায় আসার শুরু থেকেই জেকেজির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালনের বিষয়টি তিনি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত কমিশনার আব্দুল বাতেন গণমাধ্যমকে বলেন, আরিফ ও সাবরিনাকে মুখোমুখি করে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে তাঁরা দুজনই করোনার ভুয়া রিপোর্ট দেওয়ার মাধ্যমে প্রতারণার কথা স্বীকার করেছেন।

আরিফ-সাবরিনাকে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করেছিলেন ডিবির তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার গোলাম মোস্তফা রাসেল। তিনি গণমাধ্যমকে বলেন, ‘তাদের মুখোমুখি করে জিজ্ঞাসাবাদে এমন অনেক তথ্য পাওয়া গেছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে কিছু ক্লু নিয়ে কাজ করছি আমরা।’

Check Also

সংক্ষিপ্ত বিশ্ব সংবাদ: ২৮ জুন ২০২১

প্রতিদিনই আমাদের চারপাশে অসংখ্য ঘটনা ঘটছে। এর মধ্যে হয়তো আলোচনায় আসে হাতেগোনা কিছু। তবে সময় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *