ছুটির মধ্যেই প্রাথমিক শিক্ষকদের কাছে যেসব তথ্য চেয়েছে সরকার

করোনাকালীন সময়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সঙ্গে শিক্ষকদের নিয়মিত ফোনালাপ করার তথ্য চেয়েছে সরকার। সম্প্রতি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে সকল বিভাগ, জেলা ও উপজেলাভিত্তিক তথ্য বিভাগীয় উপপরিচালককে পাঠাতে নির্দেশ দেয়া হয়।

প্রাথমিক অধিদপ্তর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। এছাড়া ভার্চুয়াল মিটিং কতটি করা হয়েছে এবং শিক্ষকরা স্ব-প্রণোদিতভাবে কতটি পরিবারকে সহায়তা করেছেন তাও জানতে চাওয়া হয়েছে নির্দেশনায়।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ্ গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা আগেই টেলিফোনে যোগাযোগ রাখার নির্দেশনা দিয়েছি। শিক্ষার্থীরা বাসায় কী করছে, লেখাপড়া কতটা করছে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে কিনা,

সংসদ টিভিতে প্রচারিত ক্লাসগুলো ভালো দেখছে কিনা এসব বিষয়ে খোঁজ-খবর নিতে শিক্ষকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। লেখাপড়ার বিষয়ে শিক্ষার্থীদের মনোযোগ ধরে রাখা ও বাসায় লেখাপড়া নিশ্চিত করতে এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

গত ২৯ জুলাইয়ের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের সঙ্গে টেলিফোন সংক্রান্ত তথ্য আগামী ৬ আগস্টের মধ্যে পাঠাতে বিভাগীয় পরিচালককে নির্দেশ দেয়া হলো।

নির্দেশনায় কর্মরত শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর হিসাবসহ কত শতাংশ শিক্ষার্থীর সঙ্গে টেলিফোন যোগাযোগ করা হয়েছে,

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকের সঙ্গে কত রাউন্ড যোগাযোগ করা হয়েছে এবং শিক্ষার্থীরা কতবার শিক্ষকের সঙ্গে টেলিফোনে যোগাযোগ করেছে তা জানতে চাওয়া হয়েছে বিভাগ ও জেলাভিত্তিক।

Check Also

সংক্ষিপ্ত বিশ্ব সংবাদ: ২৮ জুন ২০২১

প্রতিদিনই আমাদের চারপাশে অসংখ্য ঘটনা ঘটছে। এর মধ্যে হয়তো আলোচনায় আসে হাতেগোনা কিছু। তবে সময় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *