গ্রিনহাউজ গ্যাস ও গ্রিনহাউজ ইফেক্ট

Discuss Today

গ্রিনহাউজ গ্যাস ও গ্রিনহাউজ ইফেক্ট

প্রশ্ন। ‘গ্রিন হাউজ’ বলতে কী বোঝায়?

উত্তর: কাঁচের ঘরকে বোঝায়। শীত প্রধান দেশে তীব্র ঠান্ডা থেকে উদ্ভিদকে রক্ষা করতে এই কাঁচের ঘরে চারা লাগানো হয়।

প্রশ্ন। যে সকল গ্যাস গ্রিন হাউজ প্রতিক্রিয়ার জন্য দায়ী, তাদেরকে কী বলে?

উত্তর: গ্রিন হাউজ গ্যাস।

প্রশ্ন। গ্রিন হাউজ কয়টি ও কী কী?

উত্তর: গ্রিনহাউজ গ্যাস মোট ৬টি। যথা: CO2, CH4, CFC. O3. N2O, H2O.

১। কার্বন ডাই-অক্সাইড (CO2) = প্রায় ৪৯%।

২। মিথেন (CH4) = প্রায় ১৯%

৩। CFC (ক্লোরোফ্লোরোকার্বন) = প্রায় ১৭%।

৪। ওজোন (O3) = প্রায় ৮% ।

৫। নাইট্রাস অক্সাইড (N2O) = প্রায় ৪%।

৬। জলীয় বাষ্প (H2O) = প্রায় ২% ।

প্রশ্ন। প্রধান দুটি গ্রিনহাউজ গ্যাস কী কী?

উত্তর: কার্বন ডাই-অক্সাইড ও মিথেন (মনে রাখতে হবে, পৃথিবীর ঊষ্ণতার জন্য দায়ী- কার্বন ডাই অক্সাইড। কিন্তু ওজোন স্তর ক্ষয়ের জন্য / ফাঁটলে জন্য দায়ী- CFC).

প্রশ্ন। গ্রিন হাউজ ইফেক্টের জন্য প্রধানত দায়ী কোন গ্যাস?

উত্তর: কার্বন ডাই-অক্সাইড।

প্রশ্ন। সিএফসি গ্যাস কত বছর পর্যন্ত সক্রিয় থাকে

উত্তর: ৮০ বছর-১৭০ বছর।

প্রশ্ন। কোন গ্যাস সূর্য থেকে আগত ক্ষতিকর অতি বেগুনী রশ্মি শোষণ করে?

উত্তর: ওজোন।

প্রশ্ন। ‘গ্রিনহাউজ ইফেক্ট’ বা ‘গ্রিনহাউজ প্রতিক্রিয়া’ বলতে কী বোঝায়?

উত্তর: গ্রিন হাউজ প্রতিক্রিয়া হচ্ছে এমন একটি প্রক্রিয়া যার দ্বারা ভূপৃষ্ঠ হতে বিকীর্ণ তাপ বায়ুমণ্ডলীয় গ্রিন হাউজ গ্যাসসমূহ দ্বারা শোষিত হয়ে পুনরায় বায়ুমণ্ডলের অভ্যন্তরে বিকিরিত হয়। এই বিকীর্ণ তাপ বায়ুমণ্ডলের নিম্নস্তরে ফিরে এসে ভূপৃষ্ঠের তথা বায়ুমণ্ডলের গড় তাপমাত্রাকে বাড়িয়ে দেয়; একেই ‘গ্রিনহাউজ ইফেক্ট’ বা ‘গ্রিনহাউজ
প্রতিক্রিয়া’ বলে । অন্যকথায়, বায়ুতে বিদ্যমান কার্বন ডাই অক্সাইড, মিথেন এবং অন্যান্য কিছু গ্যাসের উপস্থিতির কারণে বায়ুমণ্ডলের সর্বনিম্ন স্তর তথা ট্রপোস্ফিয়ার এর উষ্ণতা বৃদ্ধি ‘গ্রিনহাউস এফেক্ট’ নামে পরিচিত । ‘গ্রিনহাউজ ইফেক্ট’ বা ‘গ্রিনহাউজ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টির জন্য মেঘ হচ্ছে প্রধান অগ্যাসীয় উপাদান যা অবলোহিত রশ্মি শোষণ ও নির্গত করে।

প্রশ্ন। ‘গ্রিনহাউজ ইফেক্ট’ বা ‘গ্রিনহাউজ প্রতিক্রিয়া’ এর পরিণতি কী?

উত্তর: ভূ-পৃষ্ঠের তাপমাত্রা বৃদ্ধি, সমুদ্রের পানির উচ্চতা বৃদ্ধি, মেরু অঞ্চলের বিশাল পরিমাণ বরফ গলতে শুরু করেছে, খরা, বন্যা, ভূমিধ্বস, ভূমিকম্প, ভূমি ক্ষয় হবে। মাটির জলধারণ ক্ষমতা হ্রাস পাবে। ফলে পানীয় জলের বিশাল সংকট শুরু হবে। চাষ-বাসের জন্য জলই পাওয়া যাবে না। সমগ্র খাদ্য-শৃঙ্খল বিনষ্ট হয়ে পড়বে।

প্রশ্ন। ‘গ্রিনহাউজ ইফেক্ট’ এর ফলে বাংলাদেশের প্রত্যক্ষ ক্ষতি কী হবে?

উত্তর: বাংলাদেশের নিম্ন অঞ্চল পানিতে তলিয়ে যাবে।

নোট মোস্তাফিজার মোস্তাক

Check Also

বিভিন্ন প্রকার কালচার (চাষ)

বিভিন্ন প্রকার কালচার (চাষ)  পরীক্ষায় আসার মতো গুরুত্বপূর্ণ গুলো বাছাই করে Important culture গুলো দেয়া …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *