কোন কোন রোগের ক্ষেত্রে স্ট্রেসের পরীক্ষা করা হয়

কোন কোন রোগের ক্ষেত্রে স্ট্রেসের পরীক্ষা করা হয় হৃদপিণ্ডঘটিত রোগ নির্ণয় করার জন্য এবং বিশ্লেষণ করার জন্য স্ট্রেস Test করা হয়। চাপের সময় এটি হৃদপিণ্ডের কার্যকারিতাকে দেখায়। এটি করোনারি ধমনীর রোগ, হৃদপিণ্ডের ছন্দের মত সমস্যাকে এটি নির্ণয় করতে পারে এবং হৃদপিণ্ডঘটিত সমস্যার জন্য কী চিকিৎসা হবে, তার জন্য পরিচালনা করতে পারে।

এই পরীক্ষাটি সাধারণত সাধারণ শারীরিক ব্যায়াম করার সময় করা হয়, যেমন- ট্রেডমিলে দৌড়ানো অথবা ডাক্তারের অফিসের সামনে বাইসাইকেল চালানো। ইতিমধ্যে তখন একটি মেডিক্যাল টিম আপনার সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি নথিবদ্ধ করবেন, যেমন- রক্তচাপ, নাড়ির স্পন্দন, শ্বাসপ্রশ্বাস এবং হৃদপিণ্ডের কার্যকারিতা।

যদি আপনার শ্বাসকষ্ট বুকে ব্যথা মাথা ঘোরা অনিয়মিত হৃদস্পন্দন ইত্যাদি সমস্যা থেকে থাকে তবে হয়তো আপনার ডাক্তার আপনাকে একটি স্ট্রেস টেস্ট করানোর পরামর্শ দিতে পারেন। যদি আপনার চিকিৎসক সন্দেহ করেন যে আপনার কোন ঘটিত রোগ রয়েছে অথবা আপনি যদি মাঝামাঝি অথবা উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ পর্যায় থেকে থাকেন তবে ও আপনার ডাক্তার এটি করার জন্য পরামর্শ দিতে পারেন।

কেন স্ট্রেস Test করা হয়ঃ হৃদপিণ্ড সংক্রান্ত রোগগুলিকে নির্ণয় করার জন্য স্ট্রেস টেস্ট করা হয়। এটি করা হয়: করোনারি ধমনী রোগ নির্ণয় করার জন্য (হৃদপিন্ডের ধমনীতে ব্লকেজ) হৃদস্পন্দন জনিত সমস্যার নির্ণয় (অস্বাভাবিক হৃদস্পন্দন) হৃদপিন্ডের চিকিৎসার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া
কোন কোন রোগের ক্ষেত্রে স্ট্রেস টেস্ট করা হয়?

স্ট্রেস Test নিম্নলিখিত রোগগুলি বিশ্লেষণ করতে করা হয়

ইস্কেমিক হৃদপিণ্ড ঘটিত রোগঃ ইস্কেমিক হৃদপিণ্ডঘটিত রোগ হলো এমন একটি হৃদপিন্ডের রোগ, যেখানে হৃদপিন্ডের একটি বা একাধিক অংশে যথেষ্ট পরিমাণে রক্ত পৌঁছায় না। যখন ধমনীগুলি কোলেস্টেরল দ্বারা অবরুদ্ধ হয়ে যায় এবং রক্ত প্রবাহ বাধা পায়, তখন এই রোগটি দেখা যায়। ইস্কেমিক হৃদপিণ্ড ঘটিত রোগের উপসর্গগুলি হল বুকে ব্যথা এবং শ্বাসকষ্ট। কিছু কিছু লোকের একেবারে কোন উপসর্গ নাও থাকতে পারে।

হৃদপিণ্ডের কপাটিকা ঘটিত রোগঃ মানব হৃদপিণ্ডে চারটি কপাটিকা আছে। এগুলির কাজ হলো রক্তপ্রবাহের দিককে নিয়ন্ত্রণ করা। যদি এক বা একাধিক কপাটিকাগুলি যথার্থভাবে কাজ না করে, তবে হৃদপিন্ডের কপাটিকা জনিত রোগ হতে পারে। হৃদপিন্ডের কপাটিকা জনিত রোগের উপসর্গগুলি হল – বুকে ব্যথা, ক্লান্তি, ঝিমুনি ভাব, অজ্ঞান হয়ে যাওয়া এবং অনিয়মিত হৃদস্পন্দন।

হৃদযন্ত্র বিকল হয়ে যাওয়াঃ হৃদযন্ত্র বিকল হয়ে যাওয়া কনজেসটিভ হার্ট ফেলিওর নামেও পরিচিত। হৃদপিণ্ড যখন সঠিকভাবে রক্ত পাম্প করতে পারে না, তখন এই ঘটনা ঘটে। উচ্চ রক্তচাপ এবং ধমনী বন্ধ থাকার কারণে এটি হয়ে থাকে। হৃদযন্ত্র বিকল হয়ে যাওয়ার উপসর্গগুলি হলো – ক্লান্তি, দুর্বলতা, ফুলে থাকা, শ্বাসকষ্ট, দ্রুত এবং অনিয়মিত হৃদস্পন্দন, খিদে কমে যাওয়া এবং বমি বমিভাব ইত্যাদি।

স্ট্রেস টেস্টের প্রকারভেদঃ স্ট্রেস ইসিজি Test (ইলেক্ট্রোকার্ডিওগ্রাম)
স্ট্রেস টেস্টের অন্যতম সাধারণ এবং অতি পরিচিত প্রকারভেদটি হল স্ট্রেস ইসিজি। এই ধরনের স্ট্রেস Test, একটি স্বাস্থ্য পরীক্ষক দল বিশ্রামরত অবস্থায় এবং ব্যায়ামরত অবস্থায় আপনার ইসিজিকে পর্যবেক্ষণ করবেন।

সেবারত কর্মচারী আপনার দেহে যন্ত্রণাবিহীন ইলেকট্রোড যুক্ত করে দেবেন। তারা আপনার দেহের সঙ্গে একটি রক্তচাপ মাপার যন্ত্র জুড়ে দেবেন যাতে আপনি যখন বসে থাকা অবস্থা থেকে উঠে ট্রেডমিলে দৌড়াচ্ছেন অথবা সাইকেল চালাচ্ছেন, তখনকার পরিবর্তনগুলি পর্যবেক্ষণ করা যায়।

বিশ্রামরত অবস্থায় ইসিজি করা থেকে পদ্ধতিটি শুরু হবে এবং তারপর আপনাকে একটি ট্রেডমিলে দৌড়াতে বলা হবে অথবা বাই সাইকেল চালাতে বলা হবে। যখন আপনি আরও বেশি করে কাজ করা আরম্ভ করবেন, আপনার হৃদস্পন্দন ও রক্তচাপ এবং অন্যান্য পরিসংখ্যানের ওপর মেডিক্যাল কর্মচারী নজর রাখবেন।

এইসময়ে আপনার কিছু উপসর্গ দেখা দিতে পারে যা আপনি অবশ্যই দলের সাথে ভাগ করে নেবেন, কারণ এটি তাদের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হতে পারে। একটি ইসিজি হৃদপিন্ডের গতি নির্ণয় করা অ্যারিথমিয়া এবং কপাটিকা জনিত রোগের জন্য সুপারিশ করা হয়। এটি হৃদপিন্ডের সার্জারির ধরন এবং সময় সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নিতেও নানা রকম তথ্য প্রদান করে।

স্ট্রেস ইকো টেস্টিংঃ স্ট্রেস ইকো টেস্টিং স্ট্রেস ইকোকার্ডিওগ্রাম নামেও পরিচিত। এই পরীক্ষায় আল্ট্রাসাউন্ড ইমেজের সাহায্য নেওয়া হয়। এই পদ্ধতির শুরুতে স্বাস্থ্যকর্মী বিশ্রামরত অবস্থায় হৃদপিণ্ডের একটি আল্ট্রাসাউন্ড ইমেজ গ্রহণ করেন। এর পরবর্তী ইমেজটি তিনি ব্যায়াম করার পরে অথবা তাকে হৃদপিন্ডের উত্তেজনা প্রদানকারী ওষুধ প্রয়োগ করার পরে নেওয়া হয়।

হৃদপিন্ডের ভিতরের গঠনগুলি পর্যবেক্ষণ করার জন্য করা হয়। এটি যে হৃদপেশীগুলিতে কম পরিমাণে রক্তপ্রবাহ যায়, সেগুলি এবং মৃত কলাকে পর্যবেক্ষণ করতে সাহায্য করে। একটি স্ট্রেস Test চলাকালীন ডাক্তার স্ট্রেস টেস্টের আগে এবং পরে হৃদপিন্ডের গতিকে পর্যবেক্ষণ করবেন এবং তুলনা করবেন। এই পরীক্ষাটি হৃদপিণ্ডে যেকোনো প্রকার ব্লকেজ এবং অন্যান্য সমস্যাকে শনাক্ত করতে সক্ষম।

নিউক্লিয়ার স্ট্রেস টেস্টিংঃ একটি তেজস্ক্রিয় ট্রেসার দ্রবণের মাধ্যমে নিউক্লিয়ার স্ট্রেস টেস্টিং করা হয়। এই পদ্ধতিতে আপনাকে একটি ইন্ট্রাভেনাস তেজস্ক্রিয় দ্রবণ প্রয়োগ করা হবে যা গামা রশ্মি নিঃসরণ করবে। এটিকে একটি বিশেষ ক্যামেরা দিয়ে শনাক্ত করা যায়।

এই পদ্ধতিতে স্বাস্থ্য পরীক্ষক দলের পক্ষে হৃদপিণ্ডের একটি পরিষ্কার ছবি পাওয়া সম্ভব হয়। ট্রেসার দ্রবণটি হৃদপিন্ডের সুস্থ কোশগুলি গ্রহণ করে, তাই তারা ছবিতে স্পষ্ট ভাবে ফুটে ওঠে। পাশাপাশি, মৃত কলা এবং মৃত কোশগুলি কম রক্ত প্রবাহের কারণে এটিকে গ্রহণ করে না।

নিউক্লিয়ার স্ট্রেস টেস্টিং এমপিআই নামেও পরিচিত। এর পুরো অর্থ হল মায়োকার্ডিয়াল পারফিউশন ইমেজিং। এই পদ্ধতিটি অন্যদের তুলনায় একটু বেশি জটিল বলে গণ্য করা হয়। তাই এর ফলাফল আসতে আরো বেশি সময় লাগে। কিন্তু এটি অন্যান্যদের তুলনায় আরো বেশি যথার্থ ফলাফল দেখায়।

নিউক্লিয়ার স্ট্রেস টেস্টিং রক্তপ্রবাহের সামান্যতম পরিবর্তনও খুঁজে বার করতে পারে এবং তার পাশাপাশি গুরুতর ব্লকেজগুলিকেও খুঁজে বার করতে পারে। স্ট্রেস টেস্টের জন্য কিভাবে প্রস্তুতি নেবেন
স্ট্রেস টেস্টের আগে আপনার ডাক্তার হয়তো আপনাকে একটি সম্পূর্ণ শারীরিক পরীক্ষা করতে বলবেন এবং আপনার চিকিৎসার ইতিহাসটি বিশ্লেষণ করে দেখবেন।

স্ট্রেস টেস্টের আগেঃ যদি আপনার এমন কোন স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা থেকে থাকে যার জন্য ব্যায়াম করা কষ্টদায়ক হয়ে ওঠে যেমন আর্থারাইটিস, তবে ট্রেস টেস্টটি নির্ধারিত হওয়ার আগে আপনার ডাক্তারকে অবশ্যই জানানো উচিত। টেস্টিং করানোর আগে আপনার ডাক্তার হয়তো আপনার ওষুধ বন্ধ করে দিতে বলতে পারেন এবং আপনাকে এই পরীক্ষাটির আগে হয়তো কোনো ভারী খাবার না খেতে বলতে পারেন।

স্ট্রেস টেস্ট চলাকালীনঃ একটি স্বাস্থ্য পরীক্ষক দল আপনার বুকে ইলেকট্রোডগুলিকে জুড়ে দেবেন এবং আপনার হাতে প্রেসার কাফ করিয়ে দেবেন। আপনার হৃদস্পন্দন গণনা করার জন্য আপনার আঙুলে একটি পালস মনিটর লাগানো হবে। একবার সম্পূর্ণ ব্যবস্থাটি প্রস্তুত হয়ে গেলে আপনাকে ট্রেডমিলে উঠে ব্যায়াম করতে অথবা একটি সাইকেল চালাতে বলা হবে।

আপনার বয়সের জন্য যথার্থ হৃদস্পন্দনের হারে না পৌঁছানো পর্যন্ত আপনার গতিবেগ ধীরে ধীরে বাড়ানো হবে। যদি আপনার নথিতে কোন প্রকার যন্ত্রণার চিহ্ন দেখা যায়, তবে পরীক্ষাটি তৎক্ষণাৎ বন্ধ করে দেওয়া হবে। যদি আপনি ব্যায়াম করতে না পারেন, তবে আপনাকে লক্ষ্য সীমায় পৌঁছানোর জন্য এবং হৃদস্পন্দনের হার বৃদ্ধি করার জন্য ওষুধ দেওয়া হতে পারে।

স্ট্রেস টেস্টের পরে

একবার টেস্টটি হয়ে যাওয়ার পরে, আপনার স্বাস্থ্য পরীক্ষক দল আপনার রক্তচাপ এবং হৃদপিন্ডের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করতে থাকবেন যতক্ষণ না তা স্বাভাবিক মাত্রায় নেমে আসে। যদি কোন স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা না থেকে থাকে তবে, আপনি প্রায় তখনই স্বাভাবিক মাত্রায় ফিরে যাবেন এবং আপনারা কোনো স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরীক্ষার প্রয়োজন হবে না।

যদি বিশ্রাম নেওয়ার পরেও আপনার হৃদস্পন্দনের হার স্বাভাবিক না হয় অথবা আপনার উপসর্গগুলি না চলে যায়, তবে স্ট্রেস Testকোন হৃদপিন্ডের রোগের ইঙ্গিত পাওয়া যায় এবং তখন আপনাকে আরো পরীক্ষা করতে সুপারিশ করা হবে।

উপসংহারঃ কিছু ডাক্তার সুস্থ প্রাপ্তবয়স্কদেরও বছরে একটি করে স্ট্রেস টেস্ট করানোর সুপারিশ করেন। আপনার অন্যান্য বাৎসরিক পরীক্ষার সঙ্গে আপনার এটিও সব সময় করা উচিত, যাতে আপনার যেকোনো হৃদপিণ্ড ঘটিত রোগ আপনি যথেষ্ট সময় থাকতেই নির্ণয় করতে পারেন।

যদি আপনার হৃদপিণ্ড ঘটিত কোন ঝুঁকির ব্যাপার থাকে, তবে আপনার ডাক্তার যদি সুপারিশ করেন, আপনি যে কোনো সময় একটি স্ট্রেস টেস্ট করাতে পারেন। আপনি কি আপনার উপসর্গগুলি নিয়ে চিন্তিত? আপনি কি একজন অত্যন্ত অভিজ্ঞতাসম্পন্ন কার্ডিওলজিস্টের সঙ্গে কথা বলতে চান?

প্রায়শই জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন (FAQs)

● একটি স্ট্রেস Test,কি হৃদপিন্ডের রক্তবাহের ব্লকেজকে দেখাতে পারে? একটি স্ট্রেস টেস্ট হৃদপিন্ডের ধমনীগুলির উল্লেখযোগ্য ব্লকেজগুলিকে শনাক্ত করতে পারে যা প্রকৃতপক্ষে 70% বা তার বেশী।

● একটি পজিটিভ স্ট্রেস টেস্টের অর্থ কী?
যদি পরীক্ষায় কোনো হৃদপিণ্ড ঘটিত রোগের প্রমাণ পাওয়া যায়, তবে বলা হয় যে একটি স্ট্রেস টেস্ট পজিটিভ অথবা অস্বাভাবিক।

● স্ট্রেস টেস্ট কি একটি হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনাকে বাড়িয়ে তুলতে পারে? যদিও এটি খুবই বিরল ঘটনা, তবুও স্টেস টেস্ট হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনাকে আরো বেশী বাড়িয়ে তুলতে পারে। এই কারণেই পরীক্ষাটি চলার সময় রোগীকে খুব নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা হয়।

Check Also

পহেলা বৈশাখের ছবি, পিকচার, ওয়ালপেপার ২০২৪ | Pohela Boishakh Pictures, Photo, Image

পহেলা বৈশাখের ছবি, পিকচার, ওয়ালপেপার ২০২৪- Pohela Boishakh Pictures, Photo, Image 2024: শুরুতেই আপনাদের সকলকে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *