করোনা: প্রাথমিক-মাধ্যমিকের ২৮ ভাগ শিক্ষার্থী ঝুঁকিতে

 

করোনা: প্রাথমিক-মাধ্যমিকের ২৮ ভাগ শিক্ষার্থী ঝুঁকিতে

 

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যেও দেশের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৮ শতাংশ শিক্ষার্থী বাইরে বের হচ্ছে। কোনো স্বাস্থ্যবিধি মানছে না ১০ শতাংশ শিক্ষার্থী। ফলে করোনার ঝুঁকিতে রয়েছে প্রাথমিক-মাধ্যমিকের ২৮ শতাংশ শিক্ষার্থী।ব্র্যাকের একটি জরিপ প্রতিবেদনে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

 

শনিবার (২০ জুন) সন্ধ্যায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেনের উপস্থিতিতে এ প্রতিবেদন তুলে ধরার কথা রয়েছে।প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সারাদেশের প্রত্যেকটি বিভাগের দুটি করে জেলা অর্থাৎ ১৬টি জেলা বাছাই করে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৯৩৮ জন শিক্ষার্থীর ওপর এই জরিপ চালানো হয়। জরিপের মাঠপর্যায়ের তথ্য বলছে যে, ১৬ শতাংশ শিক্ষার্থী (৩১৮ জন) মহামারি নিয়ে আতঙ্ক প্রকাশ করেছে।

 

প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত মোট ৩১ মিলিয়ন শিক্ষার্থীর থেকে যদি আতঙ্কিত শিক্ষার্থীর মোট সংখ্যা বা সমীকরণ বের করা হয় তাহলে সংখ্যাটি বেশ বড়, যা খুবই উদ্বেগজনক। সংসদ বাংলাদেশ টিভির প্রচারিত ক্লাসে ৫৬ শতাংশ শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করতে পারছে না বলেও গবেষণায় উঠে এসেছে।

 

প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়, করোনাভাইরাসে পড়ালেখায় অনীহা জন্মেছে ১৩ শতাংশ শিক্ষার্থীর। আবার ১৪ শতাংশ শিক্ষার্থী পড়াশোনা না করে অলসভাবে সময় কাটাচ্ছে এবং ৪৪ শতাংশ শিক্ষার্থী প্রতিষ্ঠান থেকে কোনো প্রকার নির্দেশনা পাচ্ছে না।

 

 

Despite the outbreak of coronavirus, 18 percent of primary and secondary school students in the country are dropping out. 10 percent students do not follow any health rules. As a result, 28 percent of primary and secondary students are at risk of corona.

 

 

Such information has come up in a survey report of BRAC. State Minister for Primary and Mass Education on Saturday (June 20) evening. The report is to be presented in the presence of Zakir Hossain.

 

According to the report, the survey was conducted on 1938 primary and secondary school students by selecting two districts, i.e. 16 districts, from each department across the country. Field data from the survey show that 16 percent of students (318) expressed panic about the epidemic.

 

 

If the total number or equation of panic students out of the total 31 million students studying in primary and secondary schools is taken out, then the number is quite large, which is very worrying. The study also revealed that 56 percent students could not participate in the classes broadcast on Sangsad Bangladesh TV.

 

The report further states that 13 percent of students are reluctant to study coronavirus. Again, 14 percent students are spending their time lazily without studying and 44 percent students are not getting any instruction from the institution.

Priojob 

 

Check Also

ভ্যাকসিন ছাড়াই নির্মূল হবে করোনা, সুখবর দিলেন গবেষক

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন এখনো আবিষ্কার হয়নি। তবে তিনটি প্রতিষেধক বাজারে আসার অপেক্ষায় রয়েছে, চলছে চূড়ান্ত পর্বের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *