ইউটিউবার আকাশ নিবিরের অপতৎপরতা দাবি হিরো আলমের

 সোশ্যাল মিডিয়ার আলোচিত ব্যক্তিত্ব আশরাফুল আলম ওরফে হিরো আলমের বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনৈতিক প্রস্তাব ও প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ তুলেছেন শারমীন আক্তার সাথী নামে এক তরুণী। শনিবার রাজধানীর হাতিরঝিল থানায় এসব অভিযোগ করে জিডি করেন ওই তরুণী। জিডি নম্বর ১১৭২।

তবে হিরো আলম বিষয়টি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও বনোয়াট দাবি করে বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে এমন করা হচ্ছে। আপনি দেখবেন ওই স্ক্রিনশট আমার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে যায়নি। আমি ব্যবহার করি Hero alom bogura নামের অ্যাকাউন্ট। কিন্ত মেয়েটির কাছে মেসেজ গিয়েছে Hero alom নামের একটি অ্যাকাউন্ট থেকে।’ হিরো আলম থানায় বসে ফেসবুক লাইভে তার বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগ অস্বীকার করেন। এছাড়াও তার পেছনে কেউ কলকাঠি নাড়ছে বলে অভিযোগ তোলেন। ২৮ জুন সন্ধ্যায় হিরো আলম হাতিরঝিল থানায় পাল্টা জিডি করেন আকাশ নিবির নামের এক ইউটিউবার ও সাথী আকতারের বিরুদ্ধে। জিডি নম্বর-৭২১৫।

আলম বলেন, ‘আকাশ নিবির নামের ওই ইউটিউবার প্রায়ই নিজের চ্যানেলের সাবসক্রাইবার বাড়ানোর জন্য আমাকে দিয়ে বিভিন্ন জনপ্রিয় শিল্পীদের নিয়ে ভিডিও বানাতে বলেন। বিষয়টি বুঝতে পারি এটা তার অপতৎপরতা। তাই আমি রাজি না হওয়ায় আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছে সে। কাকে কাকে নিয়ে ভিডিও বানাতে বলেছে? চিত্রনায়ক শাকিব খান, জায়েদ খান, ওমর সানী, জাজ মাল্টিমিডিয়ার কর্ণধার আব্দুল আজিজ, অনন্ত জলিল-বর্ষা, নুসরাত ফারিয়া, পরীমনি, সানি লিওন। এ রকম অসংখ্য নাম হবে। তার এ প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এ ধরনের ভিত্তিহীন নাটক সাজায়। আমি কেন তাদের নিয়ে কথা বলবো?’ অনুসন্ধানে জানা গেছে, প্রশাসনে তার পদস্থ লোক আছে এমন কথা সবাইকে বলে বেড়ান।

এছাড়াও আকাশ নিবির নামের ওই ইউটিউবার নিজেকে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিত শাকিব খান, শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের কাছের লোক বলে বিভিন্ন জায়গায় পরিচয় দেন। যদিও জায়েদ খান এ ব্যাপারে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে বলেছেন, আমার অবস্থান বিবেচনায় অনেকেই আমার নাম ভাঙিয়ে সুবিধা আদায়ের সুযোগ খুঁজবেন। আমি দ্ব্যর্থহীন ভাষায় স্পষ্ট করতে চাই কোনো বিতর্কিত লোকই আমার কাছের হতে পারে না। যারা এ জাতীয় কথা বলে মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেন বা করবেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সেই অপচেষ্টাকারী সে যেই হোক তাকে আইনের আওতায় আনবেন।

প্রসঙ্গত, শনিবার হাতিঝিল থানায় সাথী অভিযোগে উল্লেখ করেন, অনন্ত জলিলের সিনেমায় কাজের সুযোগ করে দিবে বলে, তাকে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে বসেন হিরো আলম। এছাড়াও হিরো আলম বগুড়া নামে ফেসবুক থেকে একাধিকবার আমার ফেসবুকে অশ্লীল ভাষায় বিভিন্ন কু-প্রস্তাব দিতে থাকেন। আমাকে বিভিন্নভাবে সমাজের কাছে হেয় করার জন্য চেষ্টা চালিয়ে যান। বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললে আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে হিরো আলম আমাকে ফোন করে প্রাণনাশের হুমকি দিতে থাকেন।’

প্রসঙ্গত, হিরো আলম নাম নিজেও একজন ইউটিবার। হিরো আলমের ভিডিও নিয়েও কথা বলেছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছিক একাত্রিক শিল্পীরা। দুজনকে নিয়েই প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে। দুজনের ইউটিউব চ্যানেলে অশ্লীল ভিডিও প্রদর্শন করেন। এ ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা দেখানো উচিৎ বলে মনে করেন অনেকেই।

About Priyo Jobs

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *